স্টাইপেন্ডের ১০ হাজার টাকা না দিলে মিলবে না স্কুল লিভিং সার্টিফিকেট,ফতোয়া সারেঙ্গা গার্লস স্কুলের,প্রতিবাদে বিক্ষোভ।

স্টাইপেন্ডের ১০ হাজার টাকা না দিলে মিলবে না স্কুল লিভিং সার্টিফিকেট,ফতোয়া সারেঙ্গা গার্লস স্কুলের,প্রতিবাদে বিক্ষোভ।
X

বাঁকুড়া২৪X৭প্রতিবেদন : উচ্চ মাধ্যমিক উত্তীর্ণ আবাসিক ছাত্রীদের স্কুল লিভিং সার্টিফিকেট পেতে হলে তাদের স্টাইপেন্ডের ১০ টাকা স্কুলকে দান করতে হবে। এমনই ফতোয়া জারি করে জেলার জঙ্গলমহলের সারেঙ্গা গার্লস স্কুলের পরিচালন কমিটি। আর এই টাকা না দিলে সেই ছাত্রীর স্কুল লিভিং সার্টিফিকেট আটকে রেখা তার উচ্চ শিক্ষা শিকেয় তুলে দেওয়ারও হুমকী দেন স্কুলের প্রদান শিক্ষিকা।এই বিষয়টি জানাজানি হতেই ছাত্রীদের পাশে এসে দাঁড়ায় ভারত জাকাত মাঝি পরগনা মহলের যুব সংগঠন। তারা উচ্চ মাধ্যমিক উত্তীর্ণ আবাসিক ছাত্রীদের সাথে নিয়ে স্কুলে বিক্ষোভ প্রদর্শনের পাশাপাশি, প্রধান শিক্ষিকাকে ঘেরাও করেন। বুধবার বিকেলে বেশ কিছুক্ষণ ধরে চলে এই বিক্ষোভ।

এভাবে, ১০ হাজার টাকা কেন চাওয়া হচ্ছে? উত্তরে প্রধান শিক্ষিকা রঞ্জনা বাঙ্গাল এই টাকা চাওয়ার সিদ্ধান্ত স্কুল পরিচালন সমিতির বলে দাবী করেন। পাশাপাশি স্কুল পরিচালন সনিতির পক্ষে তারা শঙ্কর মহাপাত্র বলেন হোস্টেলের রাঁধুনি,কেয়ার টেকার, ও আস্থায়ী কর্মীদের জন্য সরকারী কোন বরাদ্দ নেই।তাই তাদের বেতন মেটাতে এভাবে স্টাইপেন্ডের টাকা আদায়ের প্রথা বরাবর চলা আসছে।এবার প্রথম! এমনটা নয়। যদিও,স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা বা স্কুল পরিচালন কমিটির এভাবে ছাত্রীদের কাছে টাকা তোলার কোন অধিকার নেই। অথচ মোটা টাকা আদায়ের জন্য স্কুল লিভিং সার্টিফিকেট কে হাতিয়ার করে কার্যত ব্ল্যকমেলের পথেই হাঁটা শুরু করে এই স্কুল কতৃপক্ষ। যা কখনওই সমর্থন যোগ্য নয়। এমনটা দাবী করেছেন বিক্ষোভকারীরাও।

এবং তারা অবিলম্বে সব ছাত্রীদের স্কুল লিভিং সার্টিফিকেট বিনামূল্যে দেওয়ার দাবী তুলেছেন।এখন দেখার, বিক্ষোভের পর স্কুক কর্তৃপক্ষ এই ফতোয়া তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় কিনা?

👁️দেখুন 🎦ভিডিও। 👇



Next Story