চন্দনার বিরহে দেবদাস সিন্ড্রোমে কাবু কৃষ্ণ!এক হাসপাতাল থেকে আর এক হাসপাতাল স্বামীকে নিয়ে ছুটে বেড়াচ্ছেন রুম্পা দেবী।

চন্দনার বিরহে দেবদাস সিন্ড্রোমে কাবু কৃষ্ণ!এক হাসপাতাল থেকে আর এক হাসপাতাল স্বামীকে নিয়ে ছুটে বেড়াচ্ছেন রুম্পা দেবী।
X

বাঁকুড়া২৪X৭প্রতিবেদন : চন্দনার বিরহে এখন দেবদাস সিন্ড্রোমে আক্রান্ত কৃষ্ণ!তাকে নিয়ে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে পুরো পরিবার! চন্দনার সাথে পালিয়ে বিয়ের পর ছাড়াছাড়ি হওয়ায় কৃষ্ণর শরীর আর মন দুইই খারাপ। তার ওপর দিন,দিন বাড়ছে মদ্য পানের পরিমানও। চন্দনাকে ছেড়ে থাকার যন্ত্রণা ভুলতেই তার অবস্থা দেবদাসের মতো হয়ে গেছে। পাড়া প্রতিবেশীরাও বলতে শুরু করে দিয়েছেন চন্দনার বিরহে দেবদাস সিন্ড্রোমে কাবু কৃষ্ণ কুন্ডু। স্ত্রী রূম্পা দেবী স্বামীর এই হাল শুধরাতে সমানে লড়াই করে যাচ্ছেন। বর্ধমানে এক ঠাকুর থানে ঝাড়াতেও নিয়ে গিয়েছিলেন দিন কয়েক আগে। তাতেও অবস্থার উন্নতি খুব একটা হয়নি। জন্মাষ্টমীর দিন থেকে কৃষ্ণ আরও কাবু হয়ে যায়। শ্বাসকষ্ট, বুকে ব্যথ্যা নিয়ে তার চিকিৎসার জন্য মঙ্গলবার বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিকেলে নিয়ে আসেন রূম্পা দেবী।

পরে মঙ্গলবার রাতের দিকে আবার ছাতনা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে তাকে নিয়ে গিয়ে ভর্তি করানো হয়। এখন ছাতনাতেই তার চিকিৎসা চলছে। আগের থেকে একটু ভালোও আছে কৃষ্ণ। তার এই অবস্থার জন্য শালতোড়ার বিধায়ক চন্দনা বাউরীকেই দুষছেন কৃষ্ণ'র স্ত্রী রূম্পা দেবী।

এদিকে,চন্দনার কথায় বিশ্বাস করে নিজের সংসার ছেড়ে, পালিয়ে বিয়ে করেও আখেরে লাভের লাভ কিছুই হয়নি কৃষ্ণর। উলটে তার নিজের সংসার ভাঙ্গতে বসেছে। কৃষ্ণ শুধু চন্দনা দেবীর গাড়ীর চালকই ছিলেন না। তিনি বিজেপির স্থানীয় কার্যকর্তাও ছিলেন। কিন্তু এখন সেই দলও তার পাশে নেই। কৃষ্ণর দাবী,চন্দনাকে তার স্বামী ও শ্বাশুড়ির আত্যাচার থেকে মুক্তি দিতেই সে পালিয়ে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেয়।

কিন্তু সেই সিদ্ধান্ত নেওয়ার চড়া মাশুল এখন তাকে চুকাতে হচ্ছে।তাই সেই আক্ষেও ভুলতেই তার এই বেপরোয়া জীবন যাপন এমন ঈঙ্গিতও ধরা পড়ল তার গলায়।এখন ছাতনা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে কৃষ্ণ। চন্দনা বাউরি বা বিজেপি কেও খোঁজ,খবরও রাখেনি। এখন তার একমাত্র ভরসা প্রথম স্ত্রী রূম্পা দেবী। তিনিই এখন কৃষ্ণকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনার লড়াই চালাচ্ছেন জোর কদমে।

👁️দেখুন 🎦ভিডিও। 👇


Next Story