চটি- চাটা মিডিয়া বলে সংবাদ মাধ্যমকে আক্রমণ শুভেন্দু অধিকারীর,জেলার বিষ্ণুপুরে এসে সাংবাদিকদের প্রশ্নে মেজাজ হারান তিনি।

চটি- চাটা মিডিয়া বলে সংবাদ মাধ্যমকে আক্রমণ শুভেন্দু অধিকারীর,জেলার বিষ্ণুপুরে এসে সাংবাদিকদের প্রশ্নে মেজাজ হারান তিনি।
X

বাঁকুড়া২৪X৭প্রতিবেদন : এবার সংবাদ মাধ্যমকে "চটি -চাটা মিডিয়া"- বলে সরাসরি আক্রমণ করলেন বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী। তাকে কোন বিতর্কিত প্রশ্ন না করেও তার এই ঝটিতি আক্রমণে সাংবাদিকরাও অবাক হয়ে যান এদিন। বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুরে যদুভট্ট মঞ্চে বিশেষ কার্যকর্তা বৈঠকে যোদ দিতে এসেছিলেন তিনি।


মঞ্চে ঢোকার মুখে তাকে সাংবাদিকরা জিজ্ঞাসা করেন কলকাতা হাইকোর্ট তার বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া ৫ টি মামলায় রক্ষাকবজ দিয়েছেন এবং এই মামলা গুলিতে আদালতের নির্দেশ ছাড়া কোন পদক্ষেপ করতে পারবে না পুলিশ। সেই প্রসঙ্গে তার প্রতিক্রিয়া কি?এই প্রশ্ন শোনামাত্র তিনি মেজাজ হারান। এবং বলেন, কে এসব বলছে! "চটি - চাটা মিডিয়া"।

এমনকি সাথে,সাথে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রসঙ্গ টেনে শুভেন্দু বাবু বলেন," এই চিত্রনাট্যের যিনি রূপকার সেই মমতা ব্যানার্জি কে গিয়ে জিজ্ঞাসা করুন"। এরপর সাংবাদিকদের এড়িয়ে তিনি মঞ্চে উঠে যান।পাশাপাশি, সাংবাদিকদের ওপর এদিন তিনি এতটাই চটে গিয়েছিলেন যে, যদুভট্ট মঞ্চের ভেতর সাংবাদিকদের ভিডিও তুলতেও বাধা দেন তিনি। তার নির্দেশ পেয়ে মঞ্চে বারবার সাাংবাদিকদের ছবি না তোলার কথা ঘোষণা করা হয় মাইকে। দলের কর্মীরা যদুভট্ট মঞ্চের ভেতর থেকে চিত্র সাাংবাদিকদের বের করে দেন। তবে এদিনের শুভেন্দু অধিকারীর সংবাদমাধ্যমের ওপর আচমকা চটে যাওয়ার ঘটনা নিয়ে দলের কার্যকর্তাদের মধ্যেও জোর আলোচনা শুরু হয়ে যায়। চলতে থাকে চাপা গুঞ্জনও।

তার মতো পোড় খাওয়া রাজনীতিবিদের এহেন আচরণ থেকে স্পষ্ট যে,তার বিরুদ্ধে গুচ্চ্ছ মামলা দায়ের হওয়ার কারণে যথেষ্ট মানসিক চাপের মধ্যে আছেন। যার জেরেই তিনি মেজাজ হারান এদিন এমনটাই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

দ👁️দেখুন 🎦ভিডিও। 👇

Bankura24x7 এর এন্ড্রয়েড অ্যপ ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন।

Next Story