ভবানীপুরে জয়ের হ্যাট্রিক মমতার,বাঁকুড়া জেলা জুড়ে বিজয় উৎসব তৃণমূলের।

ভবানীপুরে জয়ের হ্যাট্রিক মমতার,বাঁকুড়া জেলা জুড়ে বিজয় উৎসব তৃণমূলের।
X

বাঁকুড়া২৪X৭প্রতিবেদন : ভবানীপুর আসনে বিপুল ভোটে জয়ী হয়ে নিজের রেকর্ড নিজেই ভাঙ্গলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একইসাথে ভবানীপুরে জয়ের হ্যাট্রিকও করলেন তিনি। ২০১১ এর উপ নির্বাচনে যেখানে জয়ের ব্যবধান ছিল ৫৪,২১৩ সেখানে এই ব্যবধান এবার বেড়ে হল ৫৮,৮৩২। অর্থাৎ নিজের রেকর্ড নিজেই ভাঙলেন তৃণমূল নেত্রী। এমনকি এই আসনের সবকটি ওয়ার্ডে জয় পান তিনি।


সরাসরি এই অ্যাপটি ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।

অন্যদিকে,রাজ্যের উপ নির্বাচনের বাকি দুই আসন জঙ্গীপুর ও সামসেরগঞ্জেও বড়ো ব্যবধানে জয়লাভ করে তৃণমূল কংগ্রেসের দুই প্রার্থী। তৃণমূলের এই জয়ে সারা বাঁকুড়া জেলা জুড়ে বিজয় উৎসবে মাতল তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী,সমর্থক থেকে জেলার শীর্ষ নেতৃত্ব। শহর বাঁকুড়ার পাশাপাশি শিল্প তালুক বড়জোড়া সহ জেলার ব্লকে,ব্লকে বিজয় উল্লাস আর বিজয় মিছিলের হিড়িক পড়ে যায়।

বাঁকুড়া জেলা তৃণমূল ভবনেও বিজয় উল্লাসের পাশাপাশি ছিল আবীর খেলা আর পটকা ফাটার ধুল। শহরের বিভিন্ন এলাকায় চলে লাড্ডু বিলিও। তৃণমূলের বিভিন্ন শাখা সংগঠনও এদিন বিজয় উৎসবে সামিল হন। বাঁকুড়া জেলা তৃণমূলের সভাপতি দিব্যেন্দু সিংহ মহাপাত্র বলেন এই জয় আমাদের কাছে প্রত্যাশিতই ছিল। তবে এত বড়ো ব্যবধানে জয় মেলায় স্বাভাবিক ভাবেই দলের সকল স্তরের কর্মী,সমর্থক ও নেতৃত্বরা আনন্দিত। বাঁকুড়া শহর জুড়েও ছিল বিজয় উৎসবের হিড়িক। পুর প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারপার্সন অলোকা সেন মজুমদার, তৃণমূল নেতা দিলীপ আগরওয়াল, প্রাক্তন পুর প্রধান মহাপ্রসাদ সেনগুপ্ত, বাঁকুড়া জেলা মহিলা তৃণমূল সভানেত্রী বিশ্বরূপা সেনগুপ্ত,যুব নেতা সন্দীপ বাউরী সহ আরও অন্যান্য নেতা ও নেত্রীরা বিজয় উল্লাসে মাতেন এদিন।

একই ছবি ছিল জেলার গ্রামীণ এলাকাগুলিতেও।সেখানেও বিজয় উৎসবের কোন খামতি ছিল না। পটকা আর আবীর খেলার ধুম ছিল নজর কাড়া। তৃণমূল কর্মী সমর্থকদের পাশাপাশি অনেক সাধারণ মানুষও এদিন বিজয় উৎসবে সামিল হন। এই ঘটনা গ্রাম থেকে সদর শহর সর্বত্রই নজরে পড়ে এদিন। রাজ্যের বাকি আরো চার আসনের উপ নির্বাচন এবং আসন্ন পুর নির্বাচনের আগে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই বিপুল ভোটের জয় সদ্য বিধানসভা ভোটে বাঁকুড়া জেলার ফলাফলে মুষড়ে পড়া তৃণমূল কর্মী সমর্থকদের বাড়তি অক্সিজেন যোগাবে বলে মনে করছে জেলার রাজনৈতিক মহল।

👁️দেখুন 🎦ভিডিও। 👇



Next Story